মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ১২:২৯ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
ত্রিশালে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবীতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ ভালুকায় প্রাইভেটকারের ভিতরে ধর্ষণের ঘটনায় আটক ১ তিন বছর ধরে কাগজের নিচে বসবাস ভয়ে স্ত্রী সন্তান নিয়ে ঘর ছাড়া ময়মনসিংহ শিল্প এলাকায় শ্রমিকের শতভাগ বেতন ও ভাতা নিশ্চিত করা হয়েছে! …পুলিশ সুপার মোঃ মিজানুর রহমান  ভালুকায় ১ লাখ নিম্নআয়ের মানুষের মাঝে হাজ্বী রফিকের ঈদ উপহার বিতরণ ভালুকায় ইয়াবা ও হেরোইনসহ মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার ভালুকায় কবি’দের আড্ডায় কবিতা পাঠ ও ইফতার ত্রিশালে খাদ্য নিয়ন্ত্রণ কার্যালয়ের আয়োজনে অবহিত করণসভা অনুষ্ঠিত ভালুকা যুবদলের ইফতার অনুষ্ঠিত ভালুকায় সাত হাজার পরিবারকে হাজ্বী রফিকের ঈদ উপহার বিতরণ

পাগলা থানায় চাঞ্চল্যকর ধর্ষণ মামলার আসামী গ্রেফতার আদালতে দোষ স্বীকারোক্তি

  • আপডেট টাইম : শনিবার, ১০ ফেব্রুয়ারী, ২০২৪, ১.৪৩ পিএম
  • ১৬৪ বার পাঠিত

ময়মনসিংহ প্রতিনিধি:- ময়মনসিংহের পাগলা থানার টাংগাব ইউনিয়নের টাংগাব গ্রামের সরকারি আশ্রয়ণ প্রকল্পে থাকা অপ্রাপ্ত বয়স্ক (বয়স অনুমান ১৩ বছর) ৬ষ্ঠ শ্রেণী পড়ুয়া এক মেয়ে গত ২২ ডিসেম্বর ২০২৩ রাত সাড়ে নয়টায় বাড়ির পাশে ঝোপে ধর্ষণের স্বীকার হয়। এই ঘটনায় জড়িত ৩ জনের বিরুদ্ধে পাগলা থানায় মামলা হয়। যার মামলা নং ০৮, তাং ২৯/১২/২০২৩, ধারাঃ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ২০০০(সং /০৩) এর ৯(১)/৩০। মামলাটি চাঞ্চল্যকর মামলা হিসাবে ময়মনসিংহ রেঞ্জ ডিআইজি মনিটরিং সেলের অন্তর্ভুক্ত হয়। মামলার পর থেকে ঘটনার সাথে জড়িত আসামীরা গা ঢাকা দেয়। দীর্ঘ প্রায় দেড় মাস পর মামলাটির ২য় তদন্ত কর্মকর্তা পাগলা থানার সেকেন্ড অফিসার এস আই (নিঃ) মোঃ আমিনুল হক ঢাকার বিভিন্ন জায়গায় অভিযান চালিয়ে প্রধান আসামী ময়মনসিংহ জেলার পাগলা থানার টাংগাব গ্রামের আঃ মালেকের ছেলে মোঃ সোহেল (২৫), কে ঢাকার নিকুঞ্জ এলাকা থেকে গ্রেফতার করে। এস আই (নিঃ) আমিনুল হক আসামী গ্রেফতারের পর জিজ্ঞাসাবাদে আসামী ঘটনার সাথে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে। আজ ১০/০২/২০২৪ তারিখ আসামী সোহেল (২৫) বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট, ৪র্থ আদালতে স্বীকারোক্তি মূলক জবানবন্দি প্রদান করেছেন। বিজ্ঞ আদালতে আসামীকে জেল হাজতে প্রেরণ করেন। এই বিষয়ে মামলাটির তদন্ত কর্মকর্তা এস আই(নিঃ) মোহাম্মদ আমিনুল হক জানান, ধর্ষণের স্বীকার মেয়েটির পরিবার খুবই গরীব এবং অসহায়। মামলার প্রধান আসামীকে অভিযান করে ধরতে পেরে ভালো লাগছে। অন্য সহযোগী আসামীদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত থাকবে। পাগলা থানার অফিসার ইনচার্জ জনাব খায়রুল বাশার জানান, এই মামলাটি আমাদের জন্য খুব সেনসেটিভ ছিলো। প্রধান আসামী ধরা পড়েছে। অন্য আসামীদের গ্রেফতার সহ ভিকটিমের পরিবার যাতে ন্যায়বিচার পায় সেই লক্ষ্যে কাজ করবো।

দয়াকরে নিউজটি শেয়ার করুন

আরো পড়ুন.....

greenaronno.com

themes052459
© All rights reserved © 2018 মুক্তকণ্ঠ
Theme Download From Bangla Webs