বুধবার, ১৭ জুলাই ২০২৪, ০৯:৪৮ অপরাহ্ন
শিরোনাম :

হাতিয়ায় মা- মেয়েকে পিলারে বেঁধে টিকটক ভাইরাল!

  • আপডেট টাইম : বুধবার, ২২ ফেব্রুয়ারী, ২০২৩, ৫.০৭ পিএম
  • ১৭৯ বার পাঠিত

জিএম ইব্রাহীম,হাতিয়া (নোয়াখালী) প্রতিনিধিঃ- নোয়াখালীর হাতিয়ায় ভূমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে মা-মেয়েকে পিলারের সঙ্গে বেঁধে নির্যাতনের ভিডিও টিকটক করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যামে ছেড়ে দেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

বুধবার দুপুরে হাতিয়া থানায় ওই ঘটনায় একটি  লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

এর আগে গত ৯ ফেব্রুয়ারী উপজেলা ৯নং বুড়িরচর ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ড রেহানিয়া গ্রামে এই ঘটনা ঘটে। ভুক্তভোগীরা হলেন রেহানিয়া গ্রামের মোঃ ইদ্রিসের স্ত্রী ঝুমুর আক্তার (৪০) ও তার মেয়ে কুসুম আক্তার (১৬) ভূক্তভোগী ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়,গত ৯ ফেব্রুয়ারী জমি নিয়ে বিরোধের জের ধরে একই বাড়ির, মোঃ জহির উদ্দিনের ছেলে, মোঃ জিল্লুর রহমান (২০) সহ আরো অজ্ঞাত নামা ২/৩ জন সহ, একই বাড়ির ঝুমুর আক্তার ও তার মেয়ে কুসুম আক্তারকে পিলারের সঙ্গে রশি দিয়ে বেঁধে মারধর করে। এসময় জিল্লুর রহমান তার ব্যবহারকৃত এনড্রয়েড মোবাইল ফোন দিয়ে ভিডিও ধারন করে। এবং পরে তা স্যোসাল মিডিয়া (MD JILLUR RAHMAN.505) এই টিকটক আইডি থেকে তাদেরকে চোর হিসেবে ভিন্ন ভাবে উপস্থাপন করে ভাইরাল করে দেয়। কুসুম আক্তার স্থানীয় শহীদ আলী আহম্মদ মেমোরিয়াল উচ্চ বিদ্যালয়ের মানবিক বিভাগ থেকে ২০২৩ সালের এস এস সি পরীক্ষার্থী। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ জিল্লুর রহমানের সাথে মুটো ফোনে যোগাযোগ হলে তিনি জানান খবর পেয়ে কুলসুম আক্তারকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে হাতিয়া থানায় অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করার ব্যবস্হা নেওয়া হয়েছে। এই বিষয়ে জানতে চাইলে ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন হাতিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা
মোহাম্মদ কায়সার খসরু। তিনি বলেন ভূক্তভুগী নারী বুধবার দুপুরে এই বিষয়ে আমার কাছে মৌখিক ভাবে অভিযোগ করেন। তাৎক্ষণিক ভুক্তভোগীর অভিযোগের ভিত্তিতে হাতিয়া থানার (ওসি) মোহাম্মদ আমির হোসেনকে উক্ত বিষয়ে আইনগত ব্যাবস্থা নেওয়ার জন্য বলেছি। হাতিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি মোহাম্মদ আমির হোসেন বলেন, অভিযোগ পেয়েছি, এই বিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন।

দয়াকরে নিউজটি শেয়ার করুন

আরো পড়ুন.....

greenaronno.com

themes052459
© All rights reserved © 2018 মুক্তকণ্ঠ
Theme Download From Bangla Webs