মঙ্গলবার, ০৫ মার্চ ২০২৪, ১০:২৫ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
মারামরি মামলায় ভালুকা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কারাগারে  চারজনকে কুপিয়ে জখম: আসামীদের গ্রেফতারের দাবীতে ত্রিশালে সংবাদ সম্মেলন ভালুকায় স্থানীয় মিল কারখায় ৫০% চাকুরী কোঠার দাবীতে মানববন্ধন ভালুকায় প্রধান শিক্ষকের অপসারণ দাবিতে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ ভালুকায় যুবলীগ নেতার বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল ভালুকায় বকেয়া বেতনের দাবিতে মহাসড়ক অবরোধ ভালুকায় শহীদ দবিস পালিত ভালুকায় শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের প্রস্তুতি মূলক সভা অনুষ্ঠিত ভালুকায় বনবিভাগের অবৈধ করাতকল উচ্ছেদ মালামাল জব্দ এবছর বইমেলায় প্রকাশিত হয়েছে কবি ও ঔপন্যাসিক এরশাদ আহমেদ এর রোমান্টিক উপন্যাস “মনপ্রিয়া”

বিতর্কিতদের চায়না তৃণমূল ৩০ নভেম্বর ভালুকা উপজেলা আ’লীগের সম্মেলন

  • আপডেট টাইম : সোমবার, ২৮ নভেম্বর, ২০২২, ৩.৪১ এএম
  • ২৫৬ বার পাঠিত

বিশেষ প্রতিনিধি:- দুই দশক পর অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে ময়মনসিংহ জেলার ভালুকা উপজেলা আওয়ামীলীগের সম্মেলন। সব ঠিক থাকলে আগামী ৩০ নভেম্বর সম্মেলন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। আসন্ন এই সম্মেলনকে সামনে রেখে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদ-প্রত্যাশীরা, একদিকে তৃণমূল নেতাকর্মীদের সমর্থন আদায়, অপরদিকে কেন্দ্রীয় নেতাদের আশির্বাদ ও মনোযোগ আকর্শনে তদবিরে ব্যস্ত সময় পার করছেন। আওয়ামীলীগের সম্মেলনকে ঘিরে তৃণমূল আওয়ামীলীগ ও ভালুকার রাজনৈতিক অঙ্গনেও চলছে আলোচনা পর্যালোচনা। কে হচ্ছেন সভাপতি আর কে হচ্ছেন সাধারণ সম্পাদক। স্বাভাবিক ভাবেই দলের ভেতরে ও বাইরের নজর এখন সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদের দিকে। মাস কয়েক পরেই আমরা প্রবেশ করবো নির্বাচনের বছরে। আওয়ামীলীগের বর্তমান কমিটির নেতৃত্বে বিগত টানা পাঁচটি সাধারণ নির্বাচনে ভালুকা থেকে নৌকার বিজয় অর্জন করেছে। আগামী কমিটির নেতৃত্বে বিজয়ের এই ধারাবাহিকতা থাকবে, নাকি ছন্দপতন ঘটবে, এনিয়েও হিসাব নিকাশ চলছে আওয়ামী বলয়ে। রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের দৃষ্টি আরো গভীরে। কারা আসছে উপজেলা আওয়ামীলীগের নেতৃত্বে, কাদের হাতে থাকবে আওয়ামীলীগের আগামী দিনের নেতৃত্ব, মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শের অনুসারী, ত্যাগী, দীর্ঘ দিনের পুর খাওয়া পরিক্ষিত রাজপথের কর্মী, নাকি হাইব্রিড ও টাকা ওয়ালা ধনুকুবে ছিনিয়ে নিবে মুক্তিযুদ্ধের নেতৃত্বদানকারী এশিয়ার প্রাচীণতম রাজনৈতিক দল, কৃষক, শ্রমিক মেহনতী মানুষের আওয়ামীলীগের নেতৃত্ব। নাকি তৃণমূল থেকে উঠে আশা নেতৃত্ব ধারা পরিচালিত হবে আওয়ামীলীগ। এই সব নিয়েও চলছে আলোচনা-পর্যালোচনা। আলোচনা-পর্যালোচনা উপজেলার আনাচে-কানাচে, চায়ের দোকান থেকে অফিস পাড়ায়ও। দলীয় সূত্রে জানাযায়, ২০০৩ সালে ভালুকা উপজেলা আওয়ামীলীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছিলো। সেই সম্মেলনে সভাপতি নির্বাচিত হয়েছিলেন ভালুকা থেকে চার চারবারের নির্বাচিত সাবেক সংসদ সদস্য, সাবেক স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ প্রতিমন্ত্রী অধ্যাপক ডা. এম আমান উল্লাহ এবং সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছিলেন সাবেক উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান, বর্তমান কমিটির সাধারণ সম্পাদক, ছাত্রলীগ থেকে উঠে আশা আলহাজ্ব গোলাম মোস্তফা ও সাংগঠনিক সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছিলেন এ.বি.এম আফরোজ খান আরিফ। ইতিমধ্যে প্রয়াত হয়েছেন অধ্যাপক ডা. এম আমান উল্লাহ। অধ্যাপক ডা. এম আমান উল্লাহ ও গোলাম মোস্তফার নেতৃত্বাধিন উপজেলা আওয়ামীলীগের বর্তমান কমিটির নেতৃত্বে টানা পাঁচটি সংসদ নির্বাচন, তিনটি পৌর নির্বাচন, একটি উপজেলা ও দুটি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে বিশাল বিজয় অর্জন করে। বিগত দিনে বিএনপি-জামাত জোটের সরকার বিরোধী আন্দোলন মোকাবেলায়ও বর্তমান কমিটি ঐক্যবদ্ধভাবে রাজপথে শক্তিশালী ভূমিকা রেখেছে। কর্মিবান্ধব ও তৃণমূল পর্যায়ের নেতা-কর্মীদের মূল্যায়ন, বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ক্ষুধা, দারিদ্র মুক্ত মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ বিনির্মাণে যাঁরা কাজ করবেন তৃণমূলে গ্রহণযোগ্য এমন নেতৃত্বই আওয়ামীলীগের নেতা-কর্মীদের চাওয়া।

আসন্ন সম্মেলনে আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে একাধিক প্রার্থী থাকলেও সভাপতি পদে সাবেক ছাত্রনেতা, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক, সাবেক উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান গোলাম মোস্তফা ও আফসার বাহিনীর অধিনায়ক মরহুম মেজর আফসার উদ্দিন আহমেদ এর ছেলে, সাবেক ছাত্রনেতা, সংসদ সদস্য আলহাজ্ব কাজিমউদ্দিন আহম্মেদ ধনু এবং সাধারণ সম্পাদক পদে উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক, সাবেক ছাত্রনেতা এ.বি.এম আফরোজ খান আরিফ ও সংরক্ষিত আসনের সংসদ সদস্য, সাবেক ছাত্রনেতা, একুশে পদক প্রাপ্ত ভাষাসৈনিক, সাবেক এমপি প্রয়াত এড. মোস্তফা মতিন এর মেয়ে মনিরা সুলতানা মনির নাম নেতা-কর্মীদের মুখে মুখে আলোচিত হচ্ছে। এছাড়াও সভাপতি পদে এড. শওকত আলী, বীরমুক্তিযোদ্ধা গোলাম মোস্তফা খান ও পাপুয়া নিউগিনি ব্যবসায়ী প্রবাসী এম এ ওয়াহেদ এবং সাধারণ সম্পাদক পদে পৌর মেয়র ডা. মেজবা উদ্দিন, ওমর হায়াত খান নঈম, হাজ্বী রফিকুল ইসলাম, রফিকুল ইসলাম পিন্টুর নামও শোনা যাচ্ছে। আওয়ামীলীগের তৃণমুল নেতা-কর্মীদের দাবী, কোন হাইব্রিড ও হঠাৎ টাকার জোরে রাজনীতিতে পদ-পদবী নিয়ে আশা ধনকুবের নেতৃত্ব তারা চায়না, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শের অনুসারী এমন নেতৃত্ব তারা চান।
টাকার জুরে যারা রাজনীতিটাকে কিনতে চায়, বিএনপির পৃষ্ঠপোষক দিনে আওয়ামীলীগ আর (রাতে বিএনপির এটো থালার বিড়াল), এমন কোন বিতর্কিত নেতৃত্ব চায়না তৃণমুলের নেতা-কর্মীরা।
তৃণমুল নেতা-কর্মীদের দাবী, উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক নির্বাচন করার পূর্বে বিগত সংসদ, উপজেলা, পৌর ও ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন গুলিতে কোন নেতার কি ভূমিকা ছিলো তা অনুসন্ধান ও মূল্যায়ন করা হোক। উপজেলার মল্লিকবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের টানা দুই বারের নির্বাচিত চেয়ারম্যান আকরাম হোসাইন বলেন, প্রবীণ, ত্যাগী, দঃসময়ের পরিক্ষিত সাবেক ছাত্রনেতা গোলাম মোস্তফাকেই উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি হিসেবে চাই। তিনি বলেন, গোলাম মোস্তফা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ার পর তাঁর হাত ধরেই ভালুকার তৃণমুলে উন্নয়নের সূচনা হয়েছে। তাঁর নেতৃত্বে বিগত সবকটি নির্বাচনে নৌকার বিজয় সহ ভালুকার ১১টি ইউনিয়নের মধ্যে এর আগের বার ১১টি এই বার ১০টি নৌকার চেয়ারম্যান পেয়েছি। ৫০ বছরের রাজনীতিতে গোলাম মোস্তফার ছন্দপতন হয়নি। আমরা মনে করি, আওয়ামীলীগকে ঐক্যবদ্ধ ও শক্তিশালী করে বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা নেতৃত্বে চলমান উন্নয়নের অগ্রযাত্রা অব্যাহত রাখতে ও সামনে নির্বাচনের বছর, জামাত-বিএনপির আন্দোলনের নামে নাশকতা,জ্বালাও পুড়াও ও ˆনরাজ্য রাজপথে মোকাবেলা করবার জন্য গোলাম মোস্তফার নেতৃত্বে আওয়ামীলীগ মাঠে শক্তিশালী ভূমিকা রাখতে পারবে। ভালুকা উপজেলা কৃষকলীগের অর্থ বিষয়ক সম্পাদক, অধ্যাপক তারিকুল ইসলাম খান বলেন, আমরা লক্ষ করেছি, বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার নির্দেশ ও দলের প্রতিটি সীদ্ধান্ত বাস্তবায়নে এ.বি.এম আফরোজ খান আরিফ ছিলেন অবিচল। বিগত প্রতিটি নির্বাচনে নৌকার বিজয়ের লক্ষে তাঁর ভূমিকা ছিলো অত্যন্ত বলিষ্ঠ ও আপোষহীন। আমরা মনে করি এ.বি.এম আফরোজ খান আরিফ উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হলে, আওয়ামীলীগের তৃণমুল নেতা-কর্মীরা মূল্যায়িত হবেন এবং আওয়ামীলীগ আরো বেশি ঐক্যবদ্ধ ও শক্তিশালী হবে। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা নেতৃত্বে চলমান উনśয়নের অগ্রযাত্রা অব্যাহত রাখতে ও সামনে জামাত-বিএনপির আন্দোলনের নামে জ্বালাও পুড়াও রাজপথে মোকাবেলা করবার জন্য এ.বি.এম আফরোজ খান আরিফকে উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে প্রয়োজন। এ.বি.এম আফরোজ খান আরিফ বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শকে হৃদয়ে ধারণ করে, বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বের প্রতি আস্থা রেখে সারা জীবন রাজনীতি করেছি, কখনো দলের সিদ্ধান্তের বাইরে যাইনি, আদর্শ চ্যুত হইনি । বর্তমান কমিটির নেতৃত্বে বিগত প্রতিটি নির্বাচনে নৌকার বিজয় অর্জন এবং বিগত দিনে বিএনপি-জামাত জোটের সরকার বিরোধী আন্দোলন মোকাবেলায় দলের পাশে থেকে, দলের প্রতিটি সীদ্ধান্ত বাস্তবায়নে সব সময় সন্মুখ ভাগে ছিলাম, আছি এবং বভিষ্যতেও থাকবো ইনশাল্লাহ। আমার বিশ্বাস দল আমাকে মূল্যায়ন করবে।

দয়াকরে নিউজটি শেয়ার করুন

আরো পড়ুন.....

greenaronno.com

themes052459
© All rights reserved © 2018 মুক্তকণ্ঠ
Theme Download From Bangla Webs