শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪, ১২:৩৯ অপরাহ্ন

এমপি নাজিম উদ্দিনকে স্কুল পরিচালনা কমিটির সভাপতি: বৈধতা চ্যালেঞ্জে রীট

  • আপডেট টাইম : সোমবার, ৪ জুলাই, ২০২২, ৬.৫১ এএম
  • ১৪৬২ বার পাঠিত

বিশেষ প্রতিনিধি:-ময়মনসিংহ-৩ গৌরীপুর আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা নাজিম উদ্দিন আহমেদ কে উপজেলার শ্যামগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি হিসাবে নিয়োগ আদেশের বৈধ্যতা চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে রীট পিটিশন দায়ের হয়েছে। গত বুধবার (২৯ জুন/২০২২) এ পিটিশনের আবেদন করেন ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলার মইলাকান্দা ইউনিয়নের মইলাকান্দা গ্রামের মৃত ফয়েজ উদ্দিন আহমেদের ছেলে ফাইজুল হক শেখর। ।

বাদী পক্ষের আইনজীবী মো. মনিরুজ্জামান রানা রিট পিটিশন দায়েরের বিষয়টি নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন, রিট পিটিশনটি বিজ্ঞ আদালত গ্রহণ করেছেন। যার নং ৮১২৮/২২। এছাড়াও পিটিশনে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড ময়মনসিংহের চেয়ারম্যান, ময়মনসিংহের জেলা শিক্ষা অফিসার, গৌরীপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে পক্ষ করা হয়েছে। রিট পিটিশনের আবেদন সূত্রে জানা যায়, শ্যামগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেকমিটির সভাপতি হিসাবে বীর মুক্তিযোদ্ধা নাজিম উদ্দিন আহমেদ এমপি কে মাধ্যামিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ড ময়মনসিংহ গত ৬ জুন তারিখে সভাপতি করে শ্যামগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির অনুমোদন দেন।
বিদ্যালয়ে গত ১৯ এপ্রিল ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনে শিক্ষক প্রতিনিধি হারুন অর রশিদ, গোবিন্দ বণিক, সংরক্ষিত শিক্ষক প্রতিনিধি মোছা. আইরিন সুলতানা ও অভিভাবক প্রতিনিধি ওয়াসিম, তাপস কুমার ঘোষ, মো. আবু তাহের, মো. সিরাজুল ইসলাম নির্বাচিত হন।
রীট পিটিশনে বাদী উল্লেখ করেন বিজ্ঞ হাইকোর্ট বিভাগ এবং আপিল বিভাগ কর্তৃক গ্রহীত একাধিক রায় বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের গভর্নিং বডি এবং ম্যানেজিং কমিটির অনুমোদনকে সংসদ সদস্যের সভাপতি হিসাবে বেআইনি এবং ব্যতীত ঘোষণা করেছে। আইনানুগ কর্তৃত্ব এবং উক্ত রায়ের পরিপ্রেক্ষিতে শিক্ষা মন্ত্রণালয় সকল বোর্ডের চেয়ারম্যানদেরকে সর্বোচ্চ আদালতের রায়ের পর্যবেক্ষণ কঠোরভাবে অনুসরণ করার জন্য সাধারণ সার্কুলার জারি করলেও ময়মনসিংহ শিক্ষা বোর্ড সর্বোচ্চ আদালতের রায়ের সেই নির্দেশনাগুলো উপেক্ষা করে শামগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটিতে বীর মুক্তিযোদ্ধা নাজিম উদ্দিন আহমেদ কে সভাপতি অনুমোদন দেয়া হয়েছে। মামলার বাদী আওয়ামী লীগ নেতা ফাইজুল হক শেখর আরও জানান, তার পূর্ব পুরুষদের দানকৃত তিন একর জমিতে এ বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠিত। তিনিও এ প্রতিষ্ঠানের ম্যানেজিং কমিটিতে ১৯৯২ সনে অভিভাবক নির্বাচিত হন। যেহেতু বোর্ড বেআইনিভাবে এবং দেশের সর্বোচ্চ আদালত সুপ্রীম কোর্টের সুস্পষ্ট রায় লঙ্ঘন করে কমিটির সভাপতি অনুমোদন দিয়েছে, দেশের সর্বোচ্চ আদালতের রায়কে সম্মান প্রর্দশনে ব্যর্থ হওয়ায় তিনি এ রিট পিটিশনের আবেদন করেছেন।
এ প্রসঙ্গে বীর মুক্তিযোদ্ধা নাজিম উদ্দিন আহমেদ এমপি গণমাধ্যমকে বলেন, এ বিদ্যালয়ে ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি হওয়ার প্রস্তাব আমি বারবার নাকোচ করেছি। আমি সভাপতি হতেও চাইনি। আমার আপত্তি থাকা স্বত্তে¡ও তারা রেজুলেশান করে সভাপতি নির্বাচিত করে অনুমোদন এনেছে।

দয়াকরে নিউজটি শেয়ার করুন

আরো পড়ুন.....

greenaronno.com

themes052459
© All rights reserved © 2018 মুক্তকণ্ঠ
Theme Download From Bangla Webs