বুধবার, ১৭ জুলাই ২০২৪, ১০:৩৬ অপরাহ্ন
শিরোনাম :

বাবার সাথে ছেলের প্রতারনা!! প্রতারনার মাধ্যমে শ্রীপুরে শতবর্ষী এক বৃদ্ধের জমি লিখে নেওয়ার অভিযোগ ছেলের বিরুদ্ধে

  • আপডেট টাইম : বুধবার, ৮ জুন, ২০২২, ১.০৮ এএম
  • ১৯৮ বার পাঠিত

টি.আই সানি,গাজীপুর প্রতিনিধিঃ গাজিপুরের শ্রীপুরে ১২৫ উর্ধ্ব এক বৃদ্ধের কাছ থেকে চিকিৎসার কথা বলে প্রতারনার মাধ্যমে ২১ শতক জমি লিখে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে তারই ছোট ছেলে, আ: রশিদের মেয়ের জামাই ও আরেক নাতিন জামাইয়ের বিরুদ্ধে। উপজেলার তেলিহাটি ইউনিয়নের আবদার গ্রামের মৃত কলিম উদ্দিন শেখের ছেলে ১২৫ বছর বয়স্ক মুনছুর আলী শেখের সাথে ঘটনাটি ঘটেছে ।

এ ঘটনায় মৃত কলিম উদ্দিন শেখের ছেলে ১২৫ বছর বয়স্ক মুনছুর আলী শেখ বাদী হয়ে গাজীপুর বিজ্ঞ যুগ্ম জেলা জজ আদালতে একটি মামলা দায়ের করেন। সরেজমিন ও মামলার আর্জি সূত্রে জানা যায় শ্রীপুর উপজেলার তেলিহাটি ইউনিয়নের আবদার গ্রামের হাজ্বী মুনসুর আলী শেখ (১২৫) বার্ধক্যজনিত কারনে নানান সময় অসুস্থ থাকতেন। তারই সুযোগে তার ছোট ছেলে আঃ রশিদ, আঃ রশিদের মেয়ের জামাতা জুয়েল আহাম্মেদ, এবং মুনসুর আলী শেখের আরেক ছেলে আবু সাইদের মেয়ের জামাতা মো. ইলিয়াস মিয়া পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে মুনসুর আলীর হাটুর ব্যাথা অপসারনে চিকিৎসার জন্য অপারেশন করার কথা বলে শ্রীপুর একটি প্রাইভেট হাসপাতালে নিয়ে যায়। পরে অপারেশনের জন্য বনসহি লাগবে বলে গত ২ ডিসেম্বর ২০২১ইং হাজ্বী মুনসুর আলী শেখের কাছ থেকে দলিলে স্বাক্ষর নেয়।এদিকে হাজ্বী মনসুর আলী জানান,গত ১০ মে ২০২২ইং সকাল ১০ টার দিকে আমার ভাড়া দেয়া ১০টি রুম থেকে ভাড়া উত্তোলন করতে গেলে রশিদ গংরা বাধা প্রদান করে। বাধা প্রদানের কারন জানতে চাইলে আঃ রশিদ আমাকে বলেন আপনি আমাকে ঘর সহ এই জমি লিখে দিয়েছেন। তাই আজ থেকে এই জমি এবং ১০টি রুম আমাদের। এবং আঃ রশিদ আমাকে গালিগালাজ করে বাড়ি তেকে বের করে দেন।   এসময় রশিদ ভাড়াটিয়াদের  কাছে ভাড়া প্রদান করার জন্য ভাড়াটিয়াদের চাপ প্রয়োগ করে।

আমার ছেলের মুখে জমি লিখে দিয়েছেন কথা শোনার পর ১৭ মে ২০২২ইং শ্রীপুর সাবরেজেট্রি অফিসে খোজ খবর নিয়ে দেখি গত ২ ডিসেম্বর ২০২১ইং হাটুর ব্যাথা অপসারনে চিকিৎসার জন্য অপারেশন করার কথা বলে শ্রীপুর একটি প্রাইভেট হাসপাতালে নিয়ে যায়। পরে অপারেশনের জন্য বনসহি লাগবে বলে পরিকল্পিত ভাবে আমার কাছ থেকে দলিলে স্বাক্ষর নেয়। আমার অসুস্থতার সুযোগে আমার ছেলে আঃ রশিদ ও রশিদের মেয়ের জামাতা জুয়েল আহাম্মেদ এবং আরেক ছেলে আবু সাইদের মেয়ের জামাতা মো. ইলিয়াস মিয়া পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে আমার সাথে প্রতারনা করে জমি লিখে নিয়েছে। আমি এই প্রতারনা সঠিক বিচার চাই।

এ ঘটনায় ৬ জনকে আসামি করে গাজিপুর ১ম বিজ্ঞ যুগ্ম জেলা জজ আদালতে একটি মামলা দায়ের করেছেন হাজ্বী মুনছুর আলী। মামলা নং-১৭০/২২। এবং গাজিপুর বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালত-১এ একটি প্রতারনার মামলা দায়ের করেন। মামলা নং- ৬১৩/২২। এদিকে অভিযোক্ত আঃ রশিদ বলেন,আমি কোন প্রতারনা করিনাই, আমার বাবা আমার নামে জমি লিখে দিয়েছেন তাই আমি নিয়েছি।

দয়াকরে নিউজটি শেয়ার করুন

আরো পড়ুন.....

greenaronno.com

themes052459
© All rights reserved © 2018 মুক্তকণ্ঠ
Theme Download From Bangla Webs