বুধবার, ১৭ জুলাই ২০২৪, ০৯:৫৫ অপরাহ্ন
শিরোনাম :

আঠারবাড়ী নতুন থানায় যুক্ত হতে চান না দুইটি ইউনিয়নের বাসিন্দা

  • আপডেট টাইম : শুক্রবার, ২২ জানুয়ারী, ২০২১, ১১.১৯ এএম
  • ২৭৪ বার পাঠিত

তাপস কর,ময়মনসিংহ প্রতিনিধিঃ ময়মনসিংহের আঠারবাড়ী নতুন থানায় যুক্ত হতে চান না দুইটি ইউনিয়নের বাসিন্দারা।ঈশ্বরগঞ্জ থানা থেকে চারটি ইউনিয়ন নিয়ে আঠারবাড়ীকে পৃথক থানা করার কার্যক্রম শুরু হয়েছে। চারটি ইউনিয়ন নিয়ে নতুন থানা হওয়ার প্রক্রিয়া শুরু হলেও দুটি ইউনিয়ন চাচ্ছে পুরোনো থানার সঙ্গেই সংযুক্ত থাকতে। নতুন থানায় যুক্ত হওয়া নিয়ে বাসিন্দাদের মধ্যে তীব্র সমালোচনা শুরু হয়েছে। জানা গেছে, উপজেলার আঠারবাড়ি ইউনিয়নের রায়বাজারে আইনশৃংখলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ২০১০ সালের ফেব্রুয়ারিতে রায়বাজাল পুলিশ তদন্ত কেন্দ্র প্রতিষ্ঠা করা হয়। তৎকালীন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী শাহারা খাতুন উদ্বোধন করেন রায়বাজার পুলিশ তদন্তকেন্দ্রটি। আঠারবাড়ি ও সরিষা ইউনিয়নের আইনশৃংখলা পরিস্থিতি ও মামলার তদন্ত হতো কেন্দ্রটিতে। এ অঞ্চলে বৃহৎ বাজার হওয়ায় এলাকাটিতে আইনশৃংখলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রটির প্রয়োজনীয়তা ছিলো। কিন্তু রায়বাজার পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রটিকে আঠারবাড়ি পূর্ণাঙ্গ থানা করার দাবিতে ইউনিয়নটির লোকজন দাবি তুলে নানা মানববন্ধন সহ বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করে। এলাকাবাসীর দাবির বিষয়টি বিবেচনা নিয়ে ইতোমধ্যে রায়বাজার পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রটিকে আঠারবাড়ি থানা হিসেবে প্রতিষ্ঠার উদ্যোগ শুরু হয়েছে। উপজেলার ১১টি ইউনিয়ন ভেঙে নতুন এ থানা গঠনের কার্যক্রম চলছে। নতুন থানায় আঠারবাড়ি ও সরিষা ইউনিয়নের পাশাপাশি জাটিয়া ও সোহাগী ইউনিয়নকেও নতুন সংযুক্ত করা হচ্ছে। নতুন থানা গঠনের বিষয়ে আজ বৃহস্পতিবার সরেজমিন এলাকাটি পরিদর্শন করতে যান ময়মনসিংহ রেঞ্জের ডিআইজি ব্যারিস্টার হারুন অর রশিদ। আঠারবাড়ি থানা হতে যাচ্ছে এ খবরে ইউনিয়নের বাসিন্দাদের মধ্যে আনন্দ বইছে। কিন্তু নতুন থানায় জাটিয়া ও সোহাগী ইউনিয়ন যুক্ত হতে পারে এমন খবর ছড়িয়ে পড়ায় তীব্র সমালোচনা শুরু হয়েছে। দু’টি ইউনিয়নের নাগরিকরা আঠারবাড়ি থানার সঙ্গে সংযুক্ত হতে অনাগ্রহ প্রকাশ করছেন। এ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে চলছে তীব্র সমালোচনা। অনেকে আন্দোলনে নামার ঘোষণা দিয়েছেন। কোনো মতেই আঠারবাড়ি থানার সঙ্গে সংযুক্ত হতে চান না বাসিন্দারা। ঈশ্বরগঞ্জ থানার সঙ্গেই যুক্ত থাকতে চান সোহাগী ও জাটিয়া ইউনিয়নের বাসিন্দারা। জাটিয়া ইউনিয়নের বাসিন্দা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী রেজাউল শুভ বলেন, জাটিয়া ইউনিয়ন আঠারোবাড়ি থানায় যাওয়া জনদুর্ভোগ ছাড়া আর কিছুই না। যেখানে ঈশ্বরগঞ্জ থানায় আমরা সহজে কম সময়ে আসতে পারি সেখানে আঠারোবাড়ি ১৫ কি. মি. যেতে আমাদের অনেক সময় নষ্ট হবে। আমরা জাটিয়া ইউনিয়নবাসী তা কখনো মানবো না। প্রয়োজন হলে আমরা মানববন্ধনসহ কঠোর আন্দোলনে নামবো। সোহাগী ইউনিয়নের বাসিন্দা মোফাজ্জল হোসেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিষয়টির প্রতিবাদ জানিয়ে লিখেছেন, আঠারবাড়ী থানা হতে যাচ্ছে এটা সোহাগীবাসীর জন্য কোন আনন্দের বিষয় নয়। বরং এটা আমাদের জন্য যেমন লজ্জার তেমনি ভোগান্তির সুবিশাল সুযোগ হতে যাচ্ছে। প্রিয় সোহাগীর একজন স্থায়ী বাসিন্দা হিসেবে এর বিরোধিতা করছি এবং তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি, প্রয়োজনে আন্দোলন করবো তবুও পিছিয়ে পরবো না। সোহাগী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. হাবিবুর রহমান ও জাটিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. শামছুল হক ঝন্টু বলেন, ঈশ্বরগঞ্জের সঙ্গে তাদের এলাকার মানুষের যোগাযোগ বেশি। আঠারবাড়িতে তাদের স্থানান্তর হলে মানুষের ভোগান্তি বাড়বে। এমনটি যেনো না করা হয় প্রশাসনের কাছে জোর দাবি থাকবে। তার পরেও যদি আঠারবাড়ির সঙ্গে সংযুক্ত করা হয় তাহলে তারা আইনি প্রক্রিয়ায় মাধ্যেম প্রতিবাদ জানাবেন।ঈশ্বরগঞ্জ থানার ওসি মো. আবদুল কাদের মিয়া বলেন, চারটি ইউনিয়ন নিয়ে নতুন থানা হতে যাচ্ছে। এটি অনুমোদনের অপেক্ষায় রয়েছে। এদিকে আঠারবাড়ীকে থানা ঘোষণার সংবাদের জন‍্য আঠারবাড়ীবাসী অধির আগ্রহে অপেক্ষা সহ সর্বস্তরের লোকজনের মাঝে আনন্দের বণ‍্যা বইছে অধির-আগ্রহে অপেক্ষা করছে আঠারবাড়ীর লোকজন কখন আসবে তাদের দীর্ঘদিনের দাবি আঠারবাড়ীর থানা ঘোষনা।

দয়াকরে নিউজটি শেয়ার করুন

আরো পড়ুন.....

greenaronno.com

themes052459
© All rights reserved © 2018 মুক্তকণ্ঠ
Theme Download From Bangla Webs